মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১২ নভেম্বর ২০১৯

Hands-on Training on Skill Development of Journalists for Business Reporting Focusing on Char Issues শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্স শুরু


প্রকাশন তারিখ : 2019-11-12

পল্লী উন্নয়ন একাডেমী (আরডিএ), বগুড়ার চর ডেভেলপমেন্ট রিসার্চ সেন্টার ও মেকিং মার্কেট ওয়ার্কস ফর চরস্ (M4C) প্রকল্পের যৌথ উদ্যোগে  Hands-on Training on Skill Development of Journalists for Business Reporting Focusing on Char Issues  শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্স  ১২-১৪ নভেম্বর ২০১৯ মেয়াদে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, বগুড়ার মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) জনাব মোঃ আমিনুল ইসলাম। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গ্রামবাংলার জনগনের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সরকারের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা এসডিজি-২০৩০, উন্নত বাংলাদেশ-২০৪১, রুপকল্প-২০৭১ ও ডেল্টা প্লান- ২১০০ অর্জন করতে হলে দেশের সকল দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের জীবনযাত্রায় ইতিবাচক পরিবর্তণ আনতে হবে। বাংলাদেশের চরে বসবাসকারী দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের আওতায় নিয়ে আসতে হবে।এক্ষেত্রে সাংবাদিকরা চরাঞ্চলের সমস্যা ও সম্ভাবনার চিত্র তারা গণমাধ্যমে প্রচারের মাধ্যমে উন্নয়রেন অগ্রযাত্রায় গুরুত্বপূর্ন ভ’মিকা পালনকরতে পারেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ড. মোঃ আব্দুর রশিদ, পরিচালক, সিডিআরসি ও প্রকল্প পরিচালক, M4C প্রকল্প।কোর্স সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন নুশরাত জাহান, সহকারী পরিচালক, আরডিএ, বগুড়া ও হাসিবুর রহমান, উত্তরাঞ্চলের ব্যুরো প্রধান, ইনডিপেন্ডেন্ট টেলিভিন। কোর্সটিতে বগুড়া, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা ও সিরাজগঞ্জ জেলার মোট ৩০ জন সাংবাদিক অংশগ্রহন করেন। অনুষ্ঠানে পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, বগুড়ার পরিচালক, প্রশিক্ষণ ড. সমীর কুমার সরকার, M4C প্রকল্পের  টিম লিডার এসএম মাহামুদুজ্জামান, ম্যানেজার ক্যাপিটালাউজেশন এন্ড ক্রস কাটিং থিমস, জান্নাত আদিব চৌধুরি সহ একাডেমীর অনুষদ সদস্য ও  M4C প্রকল্পের কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সরকার ও এসডিসি’র অর্থায়নে মে ২০১৩ হতে ডিসেম্বর ২০১৯ মেয়াদে M4C প্রকল্প চলমান রয়েছে। বিশ্ব উষ্ণায়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে জনজীবনে মারাত্মক হুমকীর সৃষ্টি হচ্ছে। চরাঞ্চলগুলো নদী বেষ্টিত এবং মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ায়  যোগাযোগ ও উন্নয়ন কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। চরের এই ভৌগলিক বিপর্যয় এবং মূল-ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্নতা ব্যাপক প্রভাব ফেলে যোগাযোগ, বাজার ব্যবস্থাপনা তথা চরগুলোর অর্থনৈতিক উন্নয়নের উপর। তদুপরি, চরগুলো অনেকগুলি কৃষি ভিত্তিক অর্থনৈতিক কার্যক্রমের সম্ভাবনাকে আকড়ে ধরে আছে। যার ফলে চরগুলো শস্যভান্ডার হিসেবে খ্যাত। উৎপাদিত খাদ্য শস্যই স্থানীয় বাসিন্দাদের আয়ের অন্যতম উৎস এবং কৃষিকাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের কর্ম সংস্থানের নিরাপদ ক্ষেত্র।  কিন্তু চরাঞ্চলে টেসই বাজার ব্যবস্থাপনা না থাকায় উৎপাদিত কৃষি পণ্যের ন্যার্যমুল্য নিশ্চিত হচ্ছে না ফলে চরবাসী দিন দিন চরম দারিদ্রতা, অনিশ্চয়তা এবং বিপর্যয়সহ প্রাকৃতিক প্রতিকূলতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশের উত্তর ও উত্তর পশ্চিম অঞ্চলের মোট ১০টি জেলার (বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, গাইবান্ধা, জামালপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, রংপুর, নীলফামারি, টাঙ্গাইল এবং পাবনা) চরাঞ্চল এই প্রকল্পে আওতাভুক্ত। M4C প্রকল্পটির  মূল লক্ষ্য হলো আয় বৃদ্ধির মাধ্যমে বাংলাদেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলের নির্দিষ্ট কিছু জেলার চরে বসবাসকারীদের দারিদ্রতা ও বিপর্যয় হ্রাস করা। একইসাথে চরাঞ্চলে উৎপাদিত পণ্যের (ভূট্টা, মরিচ, পাট) উৎপাদন ও উৎর্ষতা সাধনে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠানকে সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে উন্নত জাত, উৎপাদন পদ্ধতি, প্রযুক্তি হস্তান্তর ও সম্প্রসারণ করা এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

    

    



Share with :

Facebook Facebook